Check Now

বাউন্স রেট
বাউন্স রেট


বাউন্স রেট সবসময় কম করতে হয়, এতেই আপনার ভালো।গুগল বাউন্স রেট কিভাবে নেয় যেটা গুগল এনালাটিক্স আছে।কিভাবে বাউন্স রেট কাজ করে এখানে সে সম্পর্কেও বলা হবে।


আর এই বাউন্স রেট দিয়ে আপনি আপনার ওয়েবসাইটকে বুঝে নিতে পারবেন যে কি ভালো ভাবে চলতেছে না চলতেছে না এখানে কিছু করার দরকার আছে।


বাউন্স রেট কি? কিভাবে bounce rate কম করবেন


প্রথমেই বলি

বাউন্স রেট আসলে কি?

অনেকের অনেক রকম ভুল ধারনা অনেকে জনেই না কি এটাকে এড়িয়ে চলে এজন্যই তাদের ঠিকমত ট্রাপিক আসে না।


আপনার সাইট যখন গুগলে ইনডেক্স হয় তখন গুগল থেকে যখন আপনার ইউআরএল এর উপর লোকেরা ক্লিক করে তখন হয়ত আপনার সাইট লোড হচ্ছে সে অন্য কোথাও চলে গেল, আবার হয়ত আসল দুই-তিন লাইন পড়ে চলে গেল, হয়ত আসল সাথে সাথে বের হয়ে গেল তখন এটাকেই বাউন্স রেট বৃদ্ধি বলে।

আর এই বাউন্স রেট সর্বদা কম করে রাখতে হবে।বাউন্স রেট বৃদ্ধিকে অনেকে মনে করে আপনার সাইটে কেউ আসতেছেনা। আসলে ব্যাপরটা এই রকম না।বাউন্স রেটের আরও একটা মানে আছে সেটি হল লোকজন আপনান সাইটে আসছে আর্টিকেলও পড়ছে কিন্তু আপনার সাইটের অন্য আর্টিকেলের দিকে যাচ্ছে না।

বাউন্স রেট কত থাকলে কি রকম হয়?


এখানে আরও একটা প্রশ্ন আছে যে আসলে কত বাউন্স রেট হলে কি রকম হয়।
যদি গুগল এনালটিক্সের ভিতর আপনার বাউন্স রেট ২০-৩০ % দেখায় তাহলে আপনার সাইট খুব ভালো চলছে। আপনার কিছু করার প্রয়োজন নাই।


আপনার সাইটে লোকজন আসছেও আবার একটি থেকে অন্য আরেকটি আর্টিকেলও পছন্দ হচ্ছে। এজন্যই কম বাউন্স রেট দেখায়।
আবার যদি গুগল এনালটিক্সের ভিতর আপনার বাউন্স রেট ৪০-৫০% এর ভিতর হয় এটাও ভালো। 

এখানেও আপনার সাইট ভালো কাজ করছে,তবে এটি এভারেজ। মানে আর দশটা ভালো সাইটের মতো লোকজন আসছে অন্য একটি আর্টিকেল পড়ছে এইরকম।এখানে আপনাকে আরও একটু কাজ করলে ভালো হবে কিন্তু এটাও খারাপ না।


আবার যদি গুগল এনালটিক্সের ভিতর আপনার বাউন্স রেট ৬০-৮০/৯০/১০০% এর ভিতর হয় তবে আপনার সাইটের বাউন্স রেট সবচেয়ে বেশি থাকে।মানে লোকজন আসছে আর আপনার সাইটে টিকে থাকতে পারছে না।এখানে আপনাকে আরও অনেকখানি কাজ করতে হবে।


তো এখন বুঝে গেছেন সাইটের বাউন্স রেট কত হতে হয়।এখানে সবচেয়ে বড় যে প্রশ্নটি হবে সেটি হল :


বাউন্স রেট কম করব কিভাবে?


এতক্ষণে বুঝে গেছেন আপনাকে ঠিক কতর ভিতর রাখতে হবে বাউন্স রেট।বাউন্স রেট যেহেতু বেশি হয়ে যায় আপনাকে মুটামুটি কভারেজের কাছাকাছি নিয়ে যেতে হবে।এখন আমরা সেটাই জানব।


ধরুন আপনার সাইটের ৭০% বাউন্স রেট দেখাচ্ছে। তাহলে কি এখানে ৭০ % দ্বারা কি বুঝানো হল।আসলে ৭০ % বুঝানো হয়েছে যে লোকজন আপনার সাইটে এসেছে তার ৭০% লোক আর্টিকেলটি ছেড়ে চলে যাচ্ছে।বাকি ৩০ % লোক অন্য একটি আর্টিকেল দেখতেছে।এই রকম ভাবে বাউন্স রেট নির্ধারিত হয়।

এখন আমরা এমন কিছু কাজ সম্পর্কে জানব যে গুলো করলে বাউন্স রেট কম হবে :

১. ইন্টারলিঙ্ক তৈরি করুন

যদি আপনি আপনার ভিজিটর দের ধরে রাখতে চান তাহলে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাজ হল এইটা।এখানে আপনাকে এমন কোন কাজ করতে হবে না যে আপনার সাইটের লিঙ্ক অন্য কোথাও শেয়ার করতে হবে।

আপনি আপনার সাইটের ভিতর আপনার একটি আর্টিকেলে অন্য আর্টিকেলে লিঙ্কগুলো বিভিন্ন কিওয়ার্ডের ভিতর যুক্ত করতে হবে। এতে করে আপনার ভিজিটরদের আগ্রহ বাড়বে যে এটা কি এটাও দেখি।এর ফলে ভিজিটর রা আপনার সাইটে ঠিকে থাকতে চাইবে এতে কোন সন্দেহ নাই। তাই এটি সবচেয়ে কার্যকর উপায় হিসেবে বলে মনে করা হয়।

২. ছবি সাইজ এবং সঠিক জায়গায় বসানো

আপনাকে ছদি বাউন্স রেট কমাতেই হয় এটি করতেই হবে।এখানে দুইটি কাজ করতে হবে। প্রথমটি হল
আপনি আর্টকেলের প্রথমেই ছবি লাগাবেন না।


এটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ন আমরা অনেক সময় না বুঝে একটা ছবি এনে বসিয়ে দিই আর্টিকেলে সামনে।এতে করে ভিজিটরা প্রথমেই ডুকে একটি নেগেটিভ ভাবে নিয়ে নেয়।কথায় আছে " পাস্ট ইমপ্রেশন ইজ লাস্ট ইমপ্রেশন"।বুঝতেই পারতেছেন।
দ্বিতীয়টি হল 


ছবির সাইজ ঠিক রাখা। অনেকে এত বড় বড় ছবি দেয় সেগুলো অর্ধেক পেজ ভরে জায়।এতে করে লোকজন ভালো না লেগে চলে যায় এবং বাউন্স রেট বেড়ে যায়।
তাই আমাদেরকে ছবি মাঝখানে কোন এক জায়গায় ব্লগের সাথে বানানসই একটা সাইজের ছবি দিতে হবে। 


৩. পর্যাপ্ত পরিমাণ স্পেস দেওয়া

আপনার আর্টিকেলটি বেশি ঘন হয়ে যায়ওয়া বাউন্স রেট বেড়ে যাওয়ার প্রধান কারন।কারন লোকেদের পড়তে পড়তে বিরক্ত হয়ে যাবে এবং সাইট ছেড়ে চলে যাবে।তারা চায় পর্যাপ্ত পরিমাণ স্পেস।

এর ফলে তাদের পড়া আরও একটু আরামদায়ক হবে এবং আপনার সাইটের সাথেই থাকতে চাবে এবং দ্রুত এভাবে করে বাউন্স রেট কমে যাবে।

৪. কম এ্যাডস লাগানো


আমাদের মাঝে অনেকেই আছে যে বেশি আর্নিং এর চিন্তায় এক পেজের ভিতর অনেকগুলো এ্যাডস বসিয়ে দেয়।এর ফলে শুধু বাউন্স রেটই নয় আরও অনেক সমস্যা হতে পারে।এর ফলে আপনার ঐ পেজটি লোডের সময় অনেকগুন বেড়ে যাবে।

 এবং এটা ভিজিটররা একদমই পছন্দ করে না।তাই সাইটে মানানসই এ্যাডস এবং যতটা কম রাখা যায় ততটাই ভালো। তাই আপনার বাউন্স রেট কম করতে চাইলে এটা থেকে দূরে থাকবেন।


৫. ইউজার প্রেন্ডলি লেআউট


অনেকে রয়েছে যারা সবকিছুতো ঠিকঠাক মতো করে পেলে গুগল এ্যাডসেন্সও পেয়ে যায়, ভালো মানেন আর্টিকেলও লিখে এবং ভালো ট্রাপিকও আসে কিন্তু তাদের সিপিএম কমে যায় বাউন্স রেট বেড়ে যায় ; 

এটির প্রধান কারন হলো ইউজার প্রেন্ডলি লেআউট না হওয়ার কারন।আপনার থিমটা হয়ত এতটা সুন্দর করে সাজানো নেই,যার ফলে এটি দেখতে অনেকটা খারাপ লাগে।এটিও লোকেদের চলে যাওয়ার অন্যতম কারন।

আমাদের অবশ্যই ভালো মানের প্রিমিয়াম থিম ইউজ করা উচিত।কিন্তু আমাদের কাছে প্রিমিয়াম থিম কিনার টাকা থাকে না তাই বুদ্ধিমানের কাজ হবে ভালো লেআউট যুক্ত ফ্রি থিম ব্যবহার করা।



গুগল রেঙ্ক করাতে বাউন্স রেটের কোন ভূমিকা আছে?



এখানে আমার এক কথায় উত্তর 'না'। ভালো করে বুঝে নিন বাউন্স রেট গুগল রেঙ্ক করাতে কোন কাজেই আসে না।গুগল ২০১২-২০১৬ এর এলগরিদমের মতে গুগল এনালাইসিস কোন ডেটা রেঙ্ক বা অন্য কোন কাজে ব্যবহার করে না।

এই ডেটাগুলো শুধুমাত্র গুগলের মালিকের জন্য।এই ডেটা গুলো শুধুমাত্র আপনার জন্য যাতে আপনি বুঝতে পারেন আপনার সাইটের কি অবস্থা।


গুগল কেন বাউন্স রেটকে রেঙ্কিং এ মূল্যায়ন করে না?

এখানে বাউন্স রেট মূল্যায়ন না করার প্রধান কারন কোয়ালিটির।একটা উদাহরণ দিয়ে বুঝিয়ে দিচ্ছি :


ধরুন আপনার একটা মুভি রিভিউ সাইট আছে।যেখানে একটা ছবি আর হালকা কিছু কথা তাও আবার কপিরাইটওয়ালা।কিন্তু আরও একটা মুভি রিভিউ সাইট আছে যেটিটে মুভি রিভিউর পাশাপাশি টিকেট বুক করা যায়।

এখানে লোক এল আর টিকেট কেটে চলে গেল কিন্তু আপনার মুভি রিভিউ সাইট কোন কাজের না হওয়া সত্বেও সেখানে লোকজন এল কিছু না পেয়ে এই পেজ ঐ পেজ ঘুরাঘুরি করল আর আপনার বাউন্স রেট কমে গেল কিন্তু অন্যটির কোয়ালিটি বেশি হওয়া সত্বেও বাউন্স রেট বেড়ে গেল। 


গুগল রেঙ্ক করার পিছনে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেয় কোয়ালিটি কন্টেন্ট।আশা করি বুঝতে পারছেন।




এসইও সম্পর্কিত আরো একটু দারুণ আর্টিকেল নিয়ে এলাম।আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানালে অনেকে প্রশ্ন করে ভাই বাউন্স রেট কম করব কিভাবে?তো এখানে আমি সেটাই বলেছি সাথে বাউন্স রেট টা কি বা কেন হয় সেটাই বলা হয়েছে।
ব্লগিং রিলেটেড আরও দারুন দারুন আর্টিকেল ব্লগার বিডিতে আছে।আশা করি ঐ গুলো পড়ে ব্লগিং আপনার ব্লগিং নলেজ বৃদ্ধি করবেন।
আর্টিকেলটি কেমন লাগল কমেন্ট করে জানাতে বুলবেন না।
"হ্যাপি ব্লগিং"" ব্লগার-বিডি"


Post a Comment

অপেক্ষাকৃত নতুন পুরনো