Check Now

 

গুগল এডসেন্স না পাওয়ার প্রধান কারণ


গুগল এডসেন্স না পাওয়ার অনেকগুলো কারণ রয়েছে । গুগল এডসেন্স না পাওয়ার প্রধান কারণ হলো গুগলের যে নিয়ম-কানুন গুলো রয়েছে সেগুলো না মেনে চলা। গুগলের নিয়ম-কানুন মেনে চলতে গেলে অবশ্যই অবশ্যই আপনাকে গুগলের যে গাইলেন দেওয়া আছে সেগুলো পড়ে পড়ে দেখতে হবে অর্থাৎ তাদের এডসেন্সের  যে ব্লগ গুলো রয়েছে সেগুলো দেখতে হবে। তো আজকে আপনাদেরকে সেগুলো  বলার চেষ্টা করব।


 আমি বিশ্বাস করি সেগুলো বেশিরভাগ লোকেরই দেখেনা যার জন্য তারা না বুঝে শুনে যেভাবে সেভাবে কাজ করে, ফলে তারা বেশিদূর এগোতে পারে না এবং  ফরে বলে  আমি কেন গুগল এডসেন্স পাইতেছিনা?


গুগল এডসেন্স না পাওয়ার প্রধান কারণ


আপনার কাছে কি ইউনিক ও মজাদার কনটেন্ট রয়েছে?


আপনার কনটেন্ট অবশ্যই হাই কোয়ালিটি, অরজিনাল এবং খুব সুন্দর ভাবে অডিয়েন্সের কাছে উপস্থাপন করতে হবে। আপনার কনটেন্ট গুলো অবশ্যই ভালো মানের হতে যা অবশ্যই অবশ্যই  আপনার নিজের হাতের লেখা হতে হবে। কখনোই অন্যের কপি করা  কোন কিছু ব্যবহার করা যাবে না এবং এর ফলে আপনার প্রতি মারাত্মক একটি ভুল ধারণা নিতে শুরু করবে গুগল এডসেন্স

আপনার ওয়েবসাইটের নেভিগেশন বার অবশ্যই খুব সুন্দরভাবে সাজানো থাকতে হবে। অবশ্য সেখানে  যাতে খুব সহজেই পড়া যায়, ফাংশনালিটি খুব ভালো ভাবে সাজাতে হবে।

 উদাহরণস্বরূপ---

 ট্রাভেল ওয়েবসাইট হলে নেভিগেশন বার এমন হওয়া উচিত 

হোমপেজ > ডেস্টিনেশন>গ্যালারি>রিভিউজ>অ্যাবাউট আস

প্রোগ্রামিং সম্পর্কিত ওয়েবসাইট হলে নেভিগেশন বার এমন হওয়া উচিত

হোমপেজ> সি প্লাস-প্লাস> পিএইচপি> জাভাস্ক্রিপ্ট> বিগিনার>অ্যাবাউট আস


আপনার কনটেন্ট গুলো শুধু ইউনিক থাকলেই হবে না সেগুলো কিছু রিকোয়ারমেন্ট ফুলফিল করতে হবে । সেখানে অবশ্যই আপনার আর্টিকেলগুলো 300  বা 400 ওয়ার্ড এর মত হতে হবে। তবে সর্বোচ্চ  যত ওয়ার্ড পর্যন্ত লিখতে পারেন । তবে এমন ভাবে লিখবেন যেগুলো মানুষ পড়তে পারে। তা নাহলে এডসেন্স পাওয়া সম্ভব নয়। প্রায় 20 থেকে 25 টি আর্টিকেল লেখা হলেই গুগল এডসেন্স দিয়ে দেয়।


আপনার কনটেন্ট গুলো কি এডসেন্সের পলিসি মেনে চলে?

এডসেন্স একাউন্ট এ সাইন আপ করার পূর্বে অবশ্যই এডসেন্সের পলিসি গুলি ভালোভাবে জেনে নেওয়া উচিত। এগুলো সাধারণত এডসেন্স পেয়ে যাওয়ার পরে প্রয়োজন হয়ে থাকে তারপরও আপনার জেনে নেওয়া উচিত।

এডসেন্স পলিসি


এডসেন্স পলিসি -- 

 ১। ইনভেলিড ক্লিক এবং  ইম্প্রেশন

অ্যাডসেন্সে যাওয়ার পর নিজের ইচ্ছামত নিজের এডে ক্লিক মারা অথবা অন্য কাউকে দিয়ে ইচ্ছে-জনক ভাবে অ্যাডে ক্লিক করা বা কারো দ্বারা অ্যাডে ক্লিক করানো বারবার ।


এগুলো ইনভেলিড ক্লিক এবং ইম্প্রেশন এগুলো করলে আপনার এডসেন্স একাউন্ট হারিয়ে যেতে পারে এবং খুব সহজেই  অ্যাড লিমিট বসে যেতে পারে যেটি শেষ হতে প্রায় 25 থেকে 1 মাস পর্যন্ত সময় লাগতে পারে।


২। ট্রাফিক সোর্স

আপনার ট্রাফিক সোর্স অবশ্যই গুগল থেকে হলেই ভাল । দেখা যায় বেশিরভাগ সময় আপনার ট্রাফিক বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া এবং নানান  জায়গা হতে ইচ্ছে করেই করিয়ে থাকে এগুলো কখনোই করা যাবে না।


 আবার দেখা যায় অনেকে  পেইড করে অর্থাৎ টাকা দিও ভিজিটর বাড়ায় এগুলো কখনোই করা যাবেনা ।  এইগুলো সম্পন্ন গুগলের নিয়মের বাইরে , এগুলো করলে কখনোই  অ্যাডসেন্স পাওয়া যায় না এটা নিয়ে সাবধান থাকবেন।


৩। মুভি, সফটওয়্যার, অ্যাপস,ডাউনলোড লিংক


আপনি যদি গুগল এডসেন্স পেতে চান তবে কখনোই মুভি,সফটওয়্যার, অ্যাপস এ জাতীয় কোনো কিছুরই লিংক আপনার ব্লগে দিতে চেষ্টা করবেন না। এগুলো সম্পূর্ণ গুগলের নিয়ম বহির্ভূত কাজ। এগুলো করলে অবশ্যই গুগল এডসেন্স বাতিল করা হবে এবং আপনি যদি প্রথম বার মত গুগল এডসেন্স এর জন্য এপ্লাই করে থাকেন তবে প্রথমেই রিজেক্ট খেয়ে যাবেন।


আপনি কি 18 বছরের উপরে হয়েছেন?


আপনার বয়স যদি 18 বছর না হয়ে থাকেন তবে আপনি কখনই গুগল এডসেন্স পেয়ে যাবেন না । তবে আপনার ইমেইলে যদি আপনার বয়স 18 এর উপর থাকে তাহলে পেতে পারেন। তবে কিছু সাজেশন দিতে চাই আপনাকে আপনি চাইলে আপনার কোন গার্জিয়ান অর্থাৎ মা-বাবা ভাই ও অন্য কারোর নাম বা মেইল ব্যবহার করতে পারেন।



Post a Comment

অপেক্ষাকৃত নতুন পুরনো