কিভাবে নতুন ব্লগে বা ওয়েবসাইটে ট্রাফিক বাড়াবো

ব্লগিং-এ নতুনদের সবচেয়ে বড় সমস্যা হল,তাদের ওয়েবসাইটে ট্রাফিক না আসা। আপনিও এমনটি হলে আজকে আপনাকে জানিয়ে দেবো ব্লগে ফ্রি ট্রাফিক বাড়ানোর উপায়


  • ট্রাফিক বা ভিজিটর কি?


আপনি সারাদিন কষ্ট করে আর্টিকেল লিখে সেগুলো পাবলিশ করেন আপনার ব্লগে। তো আপনার ব্লগে সেই পাবলিশ করা আর্টিকেলটি যদি কেউ নাই দেখে, তাহলে সেটির আর প্রয়োজন কি?


আপনি যে আর্টিকেলগুলো লিখবেন সেগুলো যাদের প্রয়োজন তারা দেখলেই তাদেরকে ভিজিটর বলা হয়। আর একটা ওয়েবসাইট বা ব্লগের সবচেয়ে বড় যে ব্যাপারটি থাকে সেটি হলো সাইটে ভিজিটর নিয়ে আসা।


  • ব্লগে ট্রাফিক বা ভিজিটর কেন প্রয়োজন?


একটি ব্লগে ট্রাফিক নিয়ে আসাটাই জরুরী, এটি আগেও বলেছি যদি বলা হয় কেন প্রয়োজন বা জরুরী? তাহলে বলতেই হচ্ছে আপনি যে  ব্লগ তৈরি করছেন সেটি থেকে  আর্নিং করার জন্যই সাইটে ভালো পরিমাণে ট্রাফিক প্রয়োজন হয়।


একজন ব্লগারের সফলতা নির্ভর করে তার ব্লগে কি পরিমানে ট্রাফিক আসতেছে  তার উপর। তারমানে বোঝাই যাচ্ছে যত বেশি ট্রাফিক আসবে তত বেশি আর্নিং হবে।


 যদি আপনি আপনার ব্লগে প্রতিদিন 1000 থেকে 2000 পর্যন্ত ট্রাফিক নিয়ে আসতে পারেন, তবে আপনি ধরে নিতে পারেন আপনার ব্লগিং  ক্যারিয়ার ঠিক দিকেই যাচ্ছে এবং আপনি এটি থেকে খুব ভালো পরিমাণ একটি টাকা পেয়ে যাবেন মাসে শেষে।


তাই ব্লগিং শুরু করার সময় আপনাকে চিন্তা করে নিতে হবে, কি করে ব্লগে ফ্রি ট্রাফিক নিয়ে আসা যায়? আপনি যদি নিয়মিত সাইটে ট্রাফিক নিয়ে আসতে না পারেন, তবে আপনার ব্লগিং করে বা একটি ওয়েবসাইট খুলে কোন লাভ হবে না।



  • কি করে ব্লগের ট্রাফিক নিয়ে আসা যায়?


যেহেতু ব্লগিংয়ে ট্রাফিক নিয়ে আসাই একমাত্র লক্ষ্য হওয়া উচিত । সেহেতু আপনাকে ট্রাফিক নিয়ে আসা সম্পর্কে ভালো ধারণা নিয়ে নেওয়া উচিত। আপনি যদি নতুন হয়ে থাকেন তবে আপনি এগুলো জানার মাধ্যমে আপনার ব্লগিং ক্যারিয়ারকে পরের ধাপে নিয়ে যেতে পারবেন  নিজেকে।


প্রথমেই বলে রাখি ব্লগে ট্রাফিক  আসার প্রধানত চারটি  মাধ্যম আছে। এগুলো হলো ঃ

 

১।  অর্গানিক ট্রাফিক (সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন করার মাধ্যমে)

২।  ডিরেক্ট ট্রাফিক

৩। সোশ্যাল মিডিয়ার ট্রাফিক

৪।  রেফারেল ট্রাফিক



এগুলোর মাধ্যমে আপনার ব্লগে প্রতিনিয়ত ট্রাফিক আসতে থাকবে।


1.অর্গানিক ট্রাফিক ( গুগল,ইয়াহু,বিং সহ ইত্যাদি ) -


আগেও অনেকবার বলেছি এখন আবার বলতেছি, একটি  ব্লগ তৈরি করার মূল উদ্দেশ্য হলো ট্রাফিক নিয়ে আসা। আর যদি বলা হয় কেন প্রয়োজন, তবে সেটি ও বলা হয়েছে টাকা আয় করার জন্যই।


 সেখানে বেশি পরিমাণে ভিজিটর ট্রাফিক প্রয়োজন হয়।আবার সেই ট্রাফিক বা ভিজিটর এর মধ্যে অর্গানিক ট্রাফিক সবচেয়ে প্রয়োজনীয় বলা হয়ে থাকে। আপনার ওয়েবসাইটে যদি অর্গানিক ট্রাফিক না থাকে তবে আপনি আয় করতে পারবেন না, যদিও পারেন সেটি খুবই অল্প পরিমাণ হবে।


তবে যারা ছোটখাটো ব্লগার বা ব্লগিং সাইট রয়েছে তাদের কাছে অর্গানিক ট্রাফিক খুবই প্রয়োজনীয় একটি ব্যাপার। যদি তাদের মধ্যে অর্গানিক ট্রাফিক না থাকে তবে তাদের গুগল এডসেন্স একাউন্টে এড লিমিট সহ নানান সমস্যায় ভুগতে  হবে। 


  • কিভাবে অর্গানিক ট্রাফিক নিয়ে আসব?


অর্গানিক ট্রাফিক নিয়ে আসার একমাত্র উপায় হল সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন করা অর্থাৎ এসইও করা। আপনি যদি এসইও না করেই আর্টিকেল পাবলিশ করতে থাকেন তবে আপনি খুবই অল্প পরিমাণে ট্রাফিক পাবেন। ফলে আপনার ব্লগে ট্রাফিক কম হওয়ার কারণে আপনার আর্নিং কম হবে।


আপনাকে ধীরে ধীরে নিয়মিত করে ব্লগে ভালো মানের আর্টিকেল পাবলিশ করতে হবে এবং নিত্য নতুন টিপস এবং ট্রিকস সংগ্রহ করতে হবে। এতে করে আপনার ব্লগিং এর নলেজ আরো বেশি বৃদ্ধি পাবে।


এই নলেজ বৃদ্ধি করার জন্য সবচেয়ে কার্যকর উপায় হল ইউটিউব ভিডিও দেখা সহ বিভিন্ন  ব্লগের আর্টিকেল পড়া যেমনটি আপনি এখন পড়তেছেন।



2. ডিরেক্ট ট্রাফিক -



ডিরেক্ট ট্রাফিককে অনেক সময় ব্যান্ড ট্রাফিক বলা হয়ে থাকে। কেউ যদি সরাসরি আপনার ডোমেইন নেমটি ইন্টারনেটে সার্চ করে পেয়ে থাকে এবং সরাসরি সেটিতেই ভিজিট করে তবে সেই ভিজিটর গুলোই হবে ডিরেক্ট ট্রাফিক। এই ট্রাফিক গুলোর মাধ্যমে ব্লগের রেংকিং বৃদ্ধি পায়।


তবে সাধারণত ছোটখাটো ব্লগে ডিরেক্ট ট্রাফিক কম পরিমাণে হয়ে থাকে এবং জনপ্রিয় ব্লগে বেশি ডিরেক্ট ট্রাফিক আসে।


  • কিভাবে ডিরেক্ট ট্রাফিক পাব?


যদি ডিরেক্ট ট্রাফিক পেতে চান তবে আপনার ব্লগ টি সেই ভিজিটরের কাছে প্রয়োজনীয় হতে হবে, যে ভিজিটর একবার ভিজিট করে ফেলেছে আপনার ওয়েবসাইট।


সেই বুঝে গেছে আপনার ওয়েবসাইট টা কি তার আদৌ কি আর কোন কাজে লাগবে, যদি লেগে থাকে সে আপনার ওয়েবসাইটের ডোমেন এর নামটি দেখে নেবে অথবা সেই ওয়েব এড্রেসটি তার ব্রাউজারে বুকমার্ক করে রাখবে।


এর ফলে পরবর্তীতে সে যে কোন সময় সেখান থেকে এক ক্লিকের মাধ্যমে আপনার ব্লগে পৌঁছে যাবে। আর এভাবেই একটি ব্লগে ডিরেক্ট ভিজিটর নিয়ে আসতে পারবেন।




3. সোশ্যাল মিডিয়ার ট্রাফিক -



বিভিন্ন সোশ্যাল সাইট ব্যবহার করে প্রচুর ট্রাফিক নিয়ে আসতে পারবেন।  সোশ্যাল মিডিয়া থেকে শুধুমাত্র ট্রাফিক পাওয়া যায় না,সেখান থেকে ভালো মানের ব্যাকলিংক পাওয়া যায়।


এছাড়াও যেহেতু সোশ্যাল মিডিয়া গুলোর ওয়েব  রেঙ্ক বা  ডোমেইন অথরিটি অনেক বেশি সেহেতু সেখানে আপনার আর্টিকেল পাবলিশ করলে প্রচুর পরিমাণে ভিজিটর এর সাথে সাথে গুগলে রেঙ্ক হতে সাহায্য করবে আপনার আর্টিকেলকে।


  •  কি করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রাফিক নিয়ে আসব?


সোশ্যাল মিডিয়ার ট্রাফিক নিয়ে আসতে হলে প্রথমেই ফেইসবুক-টুইটারের একটি পেজ অথবা একটি ইউটিউব চ্যানেল থাকতে হবে- আপনার ব্লগের নামে।


প্রয়োজনীয় ডিটেলস দিয়ে সেটি আপনার ওয়েবসাইটের সাথে সংযুক্ত করে নিতে হবে আপনার সেই ফেইসবুক পেইজ বা সেই ইউটিউব চ্যানেলে যদি আপনার ব্লগের লিংক শেয়ার করে থাকেন তাহলে সেখান থেকে অনেক ভালো পরিমাণে ট্রাফিক নিয়ে আসতে পারেন আপনার ওয়েবসাইটে।


সতর্কতাঃ


আপনি যদি সোশ্যাল মিডিয়ার যেখানে সেখানে আপনার ব্লগের লিংক শেয়ার করে থাকেন তাহলে সেটি মোটেও ভালো হবে না। যেহেতু আপনি গুগল অ্যাডসেন্স এর দ্বারা টাকা করতেসেন বা করবেন সেহেতু এডসেন্স এটিকে স্প্যাম হিসেবে ধরে নেবে।


তারা পারলে আপনার এডসেন্স একাউন্ট ব্যান করে দিতে পারে। শুধুমাত্র আপনার ওয়েবসাইট দ্বারা ভেরিফাই করা সোশ্যাল মিডিয়ায় লিংক শেয়ার করুন। অন্যথায় করবেন না।





4. রেফারেল ট্রাফিক -



রেফারেল ট্রাফিককে আমরা অনেকে ব্যাকলিংক হিসেবেও জানি। এটি হলো আপনার নির্দিষ্ট কোন একটি ব্লগ এর এড্রেস অন্য কোন ওয়েবসাইটে সঙ্গে যুক্ত করাকে বুঝায়। এটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন (Search Engine Optimization) করার জন্য।


  • কি করে রেফারেল ট্রাফিক নেব?


রেফারেল ট্রাফিক নেওয়া অনেক ক্ষেত্রে আপনার হাতে নাও হতে পারে।

ধরুন,

কেউ একজন তার ওয়েবসাইটে কোন একটি কারণে আপনার ওয়েবসাইটের লিংক শেয়ার করেছে তাহলে সেটি খুব ভালো একটি ব্যাপার হবে আপনার জন্য। গুগল এটিকে খুবই ভালভাবে দেখে এবং এর মাধ্যমে আপনার ডোমেইন অথরিটি বৃদ্ধি পাবে।


এছাড়াও আপনি ইন্টারনেটে বিভিন্ন মাধ্যম রয়েছে যেগুলোতে ব্যাকলিংক ক্রিয়েট করা  যায়। যেমন- কুয়ারা (Quora ), মিডিয়াম (Medium) সহ ইত্যাদি। আপনি যদি আমার এই ব্লগ টি একটু ঘুরাঘুরি করেন তাহলেই সেই সমস্ত ব্যাপার গুলো বুঝতে পারবেন।



আজকে তোমাদের যে পদ্ধতিতে গুলোর কথা বললাম এগুলো একটি ব্লগের জন্য প্রয়োজন এবং হতেই হয় । উপরে বর্ণিত করা চারটি মাধ্যমে ব্লগের ট্রাফিক আসে এবং আমি আশা করি বোঝাতে পেরেছি যে কি করে সেগুলো নিয়ে আসা যায়।


এবং আমি এটাও আশা করি আপনারা খুব ভালোভাবে বুঝতে পেরেছেন। যদি কোন কিছু বুঝতে না পারেন কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না,  প্রয়োজনের চাইলে ফেসবুকের মাধ্যমে যোগাযোগ করতে পারেন।


আর আমাদের  ব্লগ টিকে আপনার ব্রাউজারে বুকমার্ক করে রাখতে পারেন, যার ফলে আপনি আমাদের ব্লগে যখন যে কোন সময় আসতে পারেন।


1 মন্তব্য

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

অপেক্ষাকৃত নতুন পুরনো